1. [email protected] : Abdur Razzak : Abdur Razzak
  2. [email protected] : admin :
  3. [email protected] : BDNewsFast :
  4. [email protected] : Abdul Jolil : Abdul Jolil
  5. [email protected] : Nazmus Sawdath : Nazmus Sawdath
  6. [email protected] : Tariqul Islam : Tariqul Islam
শুক্রবার, ১৮ জুন ২০২১, ০৬:২২ অপরাহ্ন

আনোয়ারায় ভুল চিকিৎসায় অন্তঃসত্ত্বা নারীর মৃত্যু

  • আপডেট এর সময় : বৃহস্পতিবার, ৯ জানুয়ারী, ২০২০
  • ৪৪২ বার দেখা হয়েছে

চট্টগ্রামের আনোয়ারায় চেকআপ করতে এসে বন্দর কমিউনিটি সেন্টার কাফকো সেন্টারের মহালখান বাজারে অবসর প্রাপ্ত পরিবার পরিকল্পনার মাঠ কর্মী সেলিনা আকতার (৬৫) নামে এক ভুয়া ডাক্তারের কাছে প্রাণ হারালেন উপজেলার জুঁইদন্ডী ইউনিয়নের খুরস্কুল এলাকার ফারুক আহমদের স্ত্রী দুই সন্তানের জননী অন্তঃসত্ত্বা ছালিমা আকতার (৩৫)।

বুধবার (৮ জানুয়ারি) সন্ধ্যায় এ ঘটনা ঘটে। এঘটনায় পুলিশের নিরব ভূমিকায় এলাকার ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে।

জানাযায়, গতকাল বুধবার বিকালে স্থানীয় ছিরাবটতলীর আসাদ মেম্বারের বাড়ির মৃত মো. শেয়ার আলীর কন্যা ২ সন্তানের জননী অন্তঃসত্ত্বা ছলিমা আকতার (৩১) বাপের বাড়ি বেড়াতে এসে ছোট ভাই মো. শাহজানের সাথে চেকাপের জন্য সেলিনার চেম্বারে আসে। সেখানে অপচিকিৎসায় তার করুণ মৃত্যু হয়। নিহত ছলিমার ছোট ভাই মো. শাহজাহান (২৫) সাংবাদিকদের অভিযোগ করে বলেন, তার বড় বোন ছলিমা ৪ মাসের অন্তসত্তা। দুপুরে ভাত খেয়ে বিকালে বোনকে নিয়ে সেলিনার কাছে আসি। ডাক্তার নাম ধারি সেলিনা আমার বোনের পেট ধরে বলেন ছলিমার পেঠে মরা বাচ্চা রয়েছে। ওয়াস করে বাচ্চা বের করতে হলে ১০ হাজার টাকা দিতে হবে। কোন ধরণের পরীক্ষা নীরিক্ষা ছাড়া সাড়ে ৩ হাজার টাকায় মরা বাচ্চা গর্ভপাত ঘটানোর সিদ্ধান্ত হয়। এরপর তাকে ইনজেকশন প্রয়োগ করে গর্ভপাত করাতে গেলে তার বোন ছলিমা আকতারের মৃত্যু হয়।

তিনি আরো জানান, ঘটনাটি ধামাচাপা দিতে সেলিনা উন্নত চিকিৎসার জন্য এ্যাম্বোলেন্স ডেকে তার মৃত দেহ গাড়িতে উঠিয়ে দিতে গেলে আমরা বুঝতে পারি আমার বোন মারা গেছে। এরপর আমরা প্রতিবাদ করলে সে চিকিৎসার ব্যপারে কোন উত্তর দিতে পারেনি।

সরেজমিনে ঘটনাস্থলে গিয়ে দেখা যায়, ঘটনার খবর পেয়ে নিহত ছলিমার বাবার বাড়ি ও শ্বশুর বাড়ির লোকজন ঘটনাস্থলে সেলিনার বাড়ি ঘেরাও করে রাখে। উপস্থিত হয় বন্দর পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ শাহ আলম সুমন ও এসআই মোহাম্মদ আলী এবং স্থানীয় ইউপি সদস্যরা। এসময় নিহত ছলিমার স্বজনেরা সাংবাদিকদের কাছে জোরালো প্রতিবাদ জানায়। কয়েক ঘন্টা বাকবিতন্ডা চলতে থাকে। আনুমানিক রাত ৯টার দিকে হঠাৎ পুলিশ জনপ্রতিনিধি ও স্বজনেরা আপোষ বৈঠকে বসে। এ রির্পোট লেখা পর্যন্ত আপোষ বৈঠক শেষ হয়নি। এ ধরণের জঘন্য ঘটনার সততার পেয়েও পুলিশের রহস্যজনক নিরবতায় জনতার মাঝে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে।

বন্দর পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ শাহ আলম সুমন সাংবাদিকদের বলেন, চিকিৎসা নিতে এসে চার মাসের অন্তঃসত্ত্বার মৃত্যু হয়েছে। এব্যপারে আমরা নিশ্চিত হয়েছি। কিন্তু ক্ষতিগ্রস্ত পরিবার থেকে এব্যাপারে অভিযোগ না দিলে আমাদের আইনি ব্যবস্থা নেওয়ার সুযোগ নেই।

অভিযুক্ত ভুয়া ডাক্তার সেলিনা সাংবাদিকরা জানতে চাইলে ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে তিনি ডাক্তার নয় বলে জানিয়ে দ্রুত সাংবাদিক পরিচয় পেয়ে ঘরের দরজা বন্ধ করে দেন। ২ লাখ টাকার বিনিময়ে ঘটনাটি ধামাচাপা দেওয়ার জন্য বৈঠক চলছে।

নিউজটি শেয়ার করে সকলের মাঝে ছড়িয়ে দিন

এই ক্যাটাগরির আরো কিছু খবর