1. [email protected] : Abdur Razzak : Abdur Razzak
  2. [email protected] : admin :
  3. [email protected] : BDNewsFast :
  4. [email protected] : Abdul Jolil : Abdul Jolil
  5. [email protected] : Nazmus Sawdath : Nazmus Sawdath
  6. [email protected] : Tariqul Islam : Tariqul Islam
বৃহস্পতিবার, ১৬ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৯:৫১ অপরাহ্ন

কৃষিবিদ আব্দুর রাজ্জাক চলে গেলেন না ফেরার দেশে

  • আপডেট এর সময় : রবিবার, ৯ ফেব্রুয়ারী, ২০২০
  • ২৮১ বার দেখা হয়েছে

মোহাম্মদ আশরাফুল, কাজিপুর (সিরাজগঞ্জ) প্রতিনিধি||
প্রাকৃতিক উপায়ে বালাইদমন তত্ত্ব উদ্ভাবনে সাফল্য অর্জনে রাষ্ট্রপতি স্বর্ণপদক প্রাপ্ত অবসরপ্রাপ্ত জেলা কৃষি অফিসার (সিটিএস) কৃষিবিদ আব্দুর রাজ্জাক গুরুতর অসুস্থ্য হয়ে রবিবার (৯ ফেব্রুয়ারি) বিকেল ৪টা ৫০ মিনিটে বগুড়ার টিএমএসএস হাসপাতালে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন (ইন্নালিল্লাহে…রাজেউন)। দীর্ঘদিন ধরে তিনি কিডনি ও ডায়াবেটিক রোগে ভুগছিলেন। সম্প্রতি বগুড়ার একটি হাসপাতালে তাঁর কিডনি ডায়ালাইসিস চলছিল। এই অবস্থায় গত ২ জানুয়ারি তার মস্তিষ্কে রক্তক্ষরণ হয়ে অচেতন হয়ে পড়েন। পরে তাঁকে প্রথমে শজিমেক হাসপাতালে ও পরে টিএমএসএস মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।হাসপাতালে কর্তব্যরত চিকিৎসক জানান, রোগীর মাথায় রক্ত জমাট বেধেছিল। তাছাড়া কিডনি ঠিকমতো কাজ করছিলো না। তাঁকে অক্সিজেন দিয়ে রাখা হয়েছিল। কিন্তু আজ আর আমরা তাঁকে বাঁচাতে পারলাম না।
এসময় কৃষিবিদ আব্দুর রাজ্জাকের পুত্র আব্দুস সাকুর জানান, সোফায় বসে থাকা অবস্থায় তাঁর স্ট্রোক হয়েছিল। সাথে সাথে চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে এনেছিলাম। সেই থেকে তাঁর জ্ঞান ফিরে আসেনি এবং শেষমেষ আমার বাবা পৃথিবীর মায়া ত্যাগ করে চলে গেলেন পরপারে।

উল্লেখ্য কৃষিবিদ আব্দুর রাজ্জাক দেশের নানাস্থানে কৃষি অফিসার হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন। একসময় তিনি বাংলাদেশ টেলিভিশনে কৃষি বিষয়ক অনুষ্ঠান ধারণ ও উপস্থাপন করেছেন। ২০১০ সনে তিনি জেলা কৃষি অফিসার (সিটিএস) পদ থেকে অবসরে যান। এরপর তিনি বিভিন্ন সামাজিক সংগঠনের সাথে যুক্ত হন। সর্বশেষ তিনি কাজিপুর সাহিত্য পরিষদ ও সচেতন নাগরিক সমাজের উপদেষ্টা ও কোষাধ্যক্ষের দায়িত্ব পালন করেন। সেইসাথে সামাজিক বনায়ন ও সৃজনশীল মেধা অন্বেষণ নামে কাজিপুরের সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের নিয়ে একটি শিক্ষামূলক অনুষ্ঠান শুরু করেন। এছাড়া তিনি রেডিও সোনামুখী এফএম ৮৭.৬ নামের একটি রেডিও চ্যানেল চালু করেন। সেখানে তিনি নিয়মিত সংবাদ পর্যালোচনাসহ গঠনমূলক নানা অনুষ্ঠান প্রচার করতেন।
তিনি সোনামুখী অন্বেষা মুক্তিযুদ্ধ যাদুঘরের প্রতিষ্ঠাতা। এই যাদুঘরকে তিনি নতুন পুরাতন নানা উপরণাদি সংগ্রহ করে সমৃদ্ধ করেছেন। আব্দুর রাজ্জাকের মৃত্যুতে সামাজিক সংগঠন ভয়েস অব কাজিপুরের সভাপতি ইঞ্জিনিয়ার সাখাওয়াত হোসেন, কাজিপুর সাহিত্য পরিষদের সভাপতি সাইফুল ইসলাম পলাশী, সাহিত্য পত্রিকা কৌমুদ এর সম্পাদক রফিকুল ইসলাম, সচেতন নাগরিক সমাজের সভাপতি ফজলুল হক মনোয়ার, রাজফুল ফাউন্ডেশনের প্রতিষ্ঠাতা প্রভাষক সাইফুল ইসলাম নাবিল, মুজিবপাড়া দুঃস্থকল্যাণ সংস্থা, মমতা ফাউন্ডেশন, কাজিপুর প্রেসক্লাবসহ নানা ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠান শোক প্রকাশ করেছে।

নিউজটি শেয়ার করে সকলের মাঝে ছড়িয়ে দিন

এই ক্যাটাগরির আরো কিছু খবর