1. [email protected] : Abdur Razzak : Abdur Razzak
  2. [email protected] : admin :
  3. [email protected] : BDNewsFast :
  4. [email protected] : Abdul Jolil : Abdul Jolil
  5. [email protected] : Nazmus Sawdath : Nazmus Sawdath
  6. [email protected] : Tariqul Islam : Tariqul Islam
রবিবার, ১৩ জুন ২০২১, ০২:০৩ পূর্বাহ্ন

নারী ইউপি সদস্য মায়ের নামে ১৭ বছর ধরে ডাবল ভাতা ইস্যুকারায় বহিষ্কারের সুপারিশ

  • আপডেট এর সময় : বৃহস্পতিবার, ২ জুলাই, ২০২০
  • ১৪৫ বার দেখা হয়েছে

শেখ সাইফুল ইসলাম কবির, বাগেরহাট প্রতিনিধি :
বাগেরহাটের ফকিরহাট উপজেলার লখপুর ইউনিয়নের (৪,৫ ও ৬ নং ওয়ার্ড)নারী ইউপি সদস্য মায়ের নামে দুটি বিধবা ভাতার কার্ড ইস্যু করায় তাছলিমা বেগম লতাকে বহিষ্কার ও অপসারণের সুপারিশ করেছে উপজেলা ভাতা বাস্তবায়ন কমিটি।

ইউপি সদস্য তাছলিমা বেগম লতা তার মায়ের নামে দুটি বিধবা ভাতার কার্ড ইস্যু করে ১৭ থেকে ২১ বছর ধরে নিয়মিত টাকা উত্তোলন করছেন। এমন অভিযোগের সত্যতা পেয়ে উপজেলা প্রশাসন বিষয়টি আমলে নেয়। উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তা সবুর আলীকে অভিযোগের বিষয়ে তদন্ত করে রিপোর্ট প্রদানের নির্দেশ দেন।

তদন্তে অভিযোগের সত্যতা পেয়েছেন বলে উপজেলা ভাতা বাস্তবায়ন কমিটির সভাপতি ও উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান স্বপন কুমার দাসের কাছে তদন্ত রিপোর্ট প্রদান করেন। পরবর্তীতে উপজেলা ভাতা বাস্তবায়ন কমিটির সভায় ইউপি সদস্য তাছলিমা বেগম লতাকে বহিষ্কার ও অপসারণের সুপারিশ করা হয়। এর সাথে অবৈধভাবে উত্তোলন করা ৬৩ হাজার টাকা ফেরত দেওয়ার জন্য ইউপি সদস্য লতাকে চিঠি দিয়েছে উপজেলা ভাতা বাস্তবায়ন কমিটি।

বৃহস্পতিবার (০২ জুলাই) তদন্ত রিপোর্টসহ উপজেলা ভাতা বাস্তবায়ন কমিটির সুপারিশ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবর পাঠিয়েছেন উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তা সবুর আলী।

উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তা সবুর আলী বলেন, বিভিন্ন গণমাধ্যমে রিপোর্ট প্রকাশের পরে আমরা তদন্ত শুরু করি। তদন্তে ইউপি সদস্য তাছলিমা বেগম লতার বিরুদ্ধে সকল অভিযোগ প্রমাণিত হয়।

স্থানীয় সরকার (ইউনিয়ন পরিষদ) আইন, ২০০৯ এর ৩৪ (৪) (ঘ) ধারা মোতাবেক ইউপি সদস্য তাছলিমা বেগম লতাকে বহিষ্কার ও অপসারণের সুপারিশ করা হয়েছে। সেই সুপারিশ অনুযায়ী সকল কাগজপত্র উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবর পাঠিয়েছি।

ফকিরহাট উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোছা. শাহানাজ পারভীন বলেন, তদন্ত কমিটি ও উপজেলা ভাতা বাস্তবায়ন কমিটির সুপারিশ অনুযায়ী জেলা প্রশাসক মহোদয় বরাবর প্রয়োজনীয় ডকুমেন্টস পাঠিয়েছি। স্থানীয় সরকার বিভাগ প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন।শেখ সাইফুল ইসলাম কবির।

নিউজটি শেয়ার করে সকলের মাঝে ছড়িয়ে দিন

এই ক্যাটাগরির আরো কিছু খবর