1. [email protected] : Abdur Razzak : Abdur Razzak
  2. [email protected] : admin :
  3. [email protected] : BDNewsFast :
  4. [email protected] : Abdul Jolil : Abdul Jolil
  5. [email protected] : Nazmus Sawdath : Nazmus Sawdath
  6. [email protected] : Tariqul Islam : Tariqul Islam
শুক্রবার, ২৫ জুন ২০২১, ০১:৩৬ অপরাহ্ন

ভালোবাসার অপর নাম “অসহায় মানুষের পাশে আমরা”

  • আপডেট এর সময় : শুক্রবার, ২২ মে, ২০২০
  • ৩৪১ বার দেখা হয়েছে

শামীম আহমেদ রুবেল, সুনামগঞ্জ প্রতিনিধিঃ
শত কষ্ট বুকে চেপে মুখে হাসি নিয়ে বেচে আছে সুরমা নদীর উত্তর পারের হাজার হাজার মানুষ। করোনার থাবায় কঠিন ভাবে জীবন জাপন করতে হচ্ছে এই জন পদের বসবাসরত মানুষদের। চাতকের কাছে একফুটা জল বিলিয়ে দেওয়ার মতই তাদের পাশে থাকার চেষ্টা “অসহায় মানুষের পাশে আমরা” নামক সংগঠনটির।

সুনামগঞ্জ জেলার সদর উপজেলার সুরমা নদীর উত্তরে অবস্থিত সুরমা,জাহাঙ্গীর নগর ও রঙ্গারচর নামক তিনটি ইউনিয়ন। এই খানকার হাতে গনা কিছু চাকরি জীবি মানুষ ছাড়া অধিকাংশ মানুষই নিম্নবৃত্ত ও হত দরিদ্র মানুষ। সারাদিন বিভিন্ন জায়গায় বিভিন্ন কাজ করে, দিন শেষে হাতে করে কিছু চাল আর কিছু আনাচ তরকারি নিয়ে বাড়িতে না ফিরলে চুলোয় পাতিল বসে না এ এলাকার অধিকাংশ পরিবারে। আধুনিক তথ্য প্রযুক্তির ছোঁয়া ওই সেবার থেকে বঞ্চিত এ এলাকার মানুষ। সুখের ছোঁয়া টুকু নদী পারি দিয়ে যেতে পারে না ঐ এলাকায়। তবুও জননেত্রী দেশ রত্ন শেখ হাসিনার প্রতি ভালোবাসার কোনো কমতি নেই তাদের।

সুনামগঞ্জ এর অধিকাংশ মুক্তিযোদ্ধার বসবাস ই এই স্থানে। সরকারি অনেক সেবায় পৌঁছে না এ জনপদের বঞ্চিত মানুষের কাছে। করোনার থাবায় ক্ষুধার সাথে যুদ্ধ করছে এই এলাকার হাজারো মানুষ। যদিও কিছু সরকারি ত্রান তারা পেয়েছে তাতে ক্ষুধা নিবারণ হয়নি চার আনা মানুষের ও।বঞ্চিত মানুষের হারে মাত্র চার আনা মাুনষও পায়নি সরকারি ত্রান। তবুও মুখে হাসি নিয়ে বলে ভালো আছি আমরা। জননেত্রী শেখ হাসিনার জন্য জীবন দিতে ও পারে তারা এমন ভালোবাসাই তাদের হৃদয়ে রয়েছে তাদের নেতৃর জন্যে।

সরজমিনে পর্যবেক্ষণ কালে লক্ষ করা যায় বর্ণনার চাইতে আরও জটিল এ এলাকার মানুষপর জীবন যাপন। এসময় “অসহায় মানুষের পাশে আমরা ” নামক সংগঠনের কিছু যুবকে লক্ষ করা যায় নগত অর্থ বিতরণ করতে। খোঁজ নিয়ে জানাযায়, তারা এই এলাকার ই সন্তান। এলাকার কিছু সচেতন যুবক একত্রিত হয়ে গড়ে তুলেছেন এই সংঘটন। প্রায় সারা বছরই তাদের উপার্জনের একাংশ টাকা দিয়ে মানুষের পাশে থাকার চেষ্টা এই যুবকদের।

যদিও তাদের এই অল্প পরিমাণ অর্থ দিয়ে মানুষের তেমন কোনো উপকার করতে সক্ষম হচ্ছে না তারা। তবুও তাদের মহৎ উদ্দেশ্য ও কাজের জন্যই এই এলাকার প্রতিটা মানুষের হৃদয়ে সংঘটন টির নাম লিখা আছে। মরুর বুকে হাজারো চাতকের মাঝে কয়েক ফুটা জল যেমন তৃষ্ণা নিবারন করতে না পারলেও যতটুকু মূল্যবান মনে হয় জলের ফুটা গুলো কে। ঠিক তেমনটাই মূল্যবান এই সামান্য অনুদান এই এলাকার মানুষের কাছে । “অসহায় মানুষের পাশে আমরা” ফেইজবুক পেইজের পক্ষ থেকে ৬০ টি পরিবারে নগদ ৩৫ হাজার টাকা বিতরণ ।

আজ মেঘালয়ের পাদাঞ্চলে বর্তমান করোনা পরিস্থিতি মোকাবেলা ও পবিত্র ঈদ উপলক্ষে মানবিক দায়িত্ব থেকে অসহায় ও খেটে খাওয়া মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছে কিছু স্বপ্নবাজ মানুষ, সুনামগঞ্জ সদর জাহাঙ্গীর নগর ইউনিয়নের ৯ নং ওয়ার্ড ইসলামপুর গ্রামের ফেইজবুককে কেন্দ্র করে গড়ে ওঠা পেইজ “অসহায় মানুষের পাশে আমরা”। এই পেইজের সকল সদস্য মানবিক চেতনায় উজ্জীবিত হয়ে আজ শুক্রবার পেইজের বিভিন্ন গ্রামে বাড়ি বাড়ি গিয়ে বর্তমান করোনা পরিস্থিতি মোকাবেলা ও ঈদ উপলক্ষে ৬০ টি গরীব ও অসহায় পরিবারের কাছে নগদ টাকা পৌছে দিয়েছে।

জানা যায়, ফেইসবুক পেইজ “অসহায় মানুষের পাশে আমরা” এর যাত্রা শুরু হয় ২০১৯ সালের প্রথম দিকে। এই ফেইজবুক পেইজটি কিছু দিন আগে করোনা ভাইরাস শুরু হওয়ার পর গরীব ও অসহায় পরিবারে এক সপ্তাহের খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করেছেন। এ ছাড়াও বিভিন্ন উৎসবে গরীব ও অসহায় মানুষের বিভিন্ন আর্থিক সহায়তা, গরীব মেধাবী ছাত্র-ছাত্রীদের মধ্যে নগদ অর্থ বিতরণ করেছেন। সদস্য এবং এলাকার স্বপ্নবাজ তরুনেরা বিভিন্ন এলাকার গরীব ও শীতার্ত মানুষের খুঁজ নিয়ে গত শীতকালে তাদের ঘরে ঘরে কম্বল পৌঁছে দিয়েছেন। প্রতিবারের মত এবারও সবার ঘরে ঘরে ঈদ যাতে আনন্দে কাটাতে পরে এই লক্ষে ৬০ টি পরিবারে ৩৫ হাজার নগদ টাকা পৌঁছে দিয়েছেন।

পেইজের প্রতিষ্ঠা ও পরিচালক প্রভাষক মো.মাইনুদ্দীন বলেছেন, নভেল করোনা ভাইরাস পৃথিবীতে এখন মহামারি আকার ধারণ করছে ও সমানে মুসলামনের বড় উৎস ঈদ। আমাদের আশে-পাশে অনেক গরীব ও খেটে খাওয়া মানুষ আছেন যাদের পাশে আমরা দাঁড়াতে পারছি বিধায় আমরা নিজের ধন্য মনে করছি। যারা সার্বিক ভাবে সাহায্য ও সহযোগিতা করেছেন তাদের সবাইকে আন্তরিকভাবে ধন্যবাদ জানাই।

যারা সার্বিকভাবে সাহায্য ও সহযোগিতা করেছেন ,মেজর কেএসএম মো.বায়েজিদ আহমেদ, এস. আই অহিদ মিয়া,মোঃ আসাদুজ্জামান সেন্টু ভাই,মো.সাইফুল ইসলাম(বাবুল), ব্যাংকার মো.শামীম আহমেদ, পুলিশ সদস্য মো.দেলোয়ার হোসেন,ব্যাংকার কেএইচএম.মো.আরাফাত হোসেন, জনাব আবুল কালাম আজাদ, ব্যাংকার তারেক হোসেল (সোহেল) , প্রবাসী আনোয়ার হোসেন,মো.নূরে আলম, মো. আব্দুর রহিম,বুরহানউদ্দীন, মো.আব্দুল আজিজ, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো.আক্কাস আলী, এস.আই.মোহাম্মদ এখলাছ মিয়া,রাজীব আহমেদ, মো.জুয়েল মিয়া, মো.আলী আকবর,আলী আহমেদ, মো.বাদশা মিয়া,মো.সজল ভূইয়া,মো.কামাল হোসেন, মো.সেলিম মিয়া,মিনহাজউদ্দীন,মো. রহম আলী, তোফাজ্জল হোসেন, হাফেজ আলমগীর, মোজ্জামেল হক (অপু), প্রবাসী সাদিকুল ইসলাম (কালা),কাজী মোতালিব, সালেহ মোছা,শাহ আলম, নজরুল ইসলাম,রমজান আলী।

এই পেইজের প্রত্যেকেই ভেবেছেন আমাদের আশে-পাশে অসহায় মানুষ আছেন। আসুন সবাই এই সংকটময় মূহুর্তে নিজ নিজ অবস্থান থেকে সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে নিজেদের নৈতিক দায়িত্ব ও কর্তব্য পালন করি। এই মহতী কাজে এলাকার সবাই ও যারা সহায়তা পেয়েছেন তারা পরিষদের সবার জন্য দোয়া ও সুস্থতা কামনা করেছে।

নিউজটি শেয়ার করে সকলের মাঝে ছড়িয়ে দিন

এই ক্যাটাগরির আরো কিছু খবর