1. [email protected] : Abdur Razzak : Abdur Razzak
  2. [email protected] : admin :
  3. [email protected] : BDNewsFast :
  4. [email protected] : Abdul Jolil : Abdul Jolil
  5. [email protected] : Nazmus Sawdath : Nazmus Sawdath
  6. [email protected] : Tariqul Islam : Tariqul Islam
শুক্রবার, ১৮ জুন ২০২১, ০৫:৫৩ অপরাহ্ন

রায়গঞ্জ উপজেলা ছাত্রদলের সম্ভব্য সাধারন সম্পাদক পদপার্থী বাদশা ফাহাদ আব্বাসী

  • আপডেট এর সময় : শনিবার, ৮ আগস্ট, ২০২০
  • ৭৬০ বার দেখা হয়েছে

ভ্রাম্যমাণ প্রতিনিধিঃ বাদশা ফাহাদ আব্বাসী ঐতিহাসিক ভাবে রাজনৈতিক পরিবারে জন্ম গ্রহন করলেও তার রাজনৈতিক হাতেখড়ি সলংগার হাইস্কুল জীবনে , জাতীয়তাবাদী ভাবধারার পরিবারে জন্মগ্রহণ করা বাদশা ফাহাদ আব্বাসী প্রয়াত স্কুল শিক্ষক মরহুম আলহাজ্ব আব্দুল মজিদ মাষ্টার সাহেবের কনিষ্ট পুত্র। তার রাজনৈতিক অংঙ্গনে পদচারনার শুরু হয় ২০০১ সালের নির্বাচনে বিএনপি পার্থী জনাব আলহাজ্ব আব্দুল মান্নান তালুকদার সাহেবের পক্ষে মিছিল মিটিংয়ে অংশ গ্রহনের মধ্য দিয়ে ।

মোঃ বাদশা ফাহাদ আব্বাসী ঐতিহ্যবাহী সলংগা ইসলামিয়া উচ্চ বিদ্যালয়ে অধ্যায়ন কালে ২০০৯ সালে বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের ২৮ তম শাহাদৎ বার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত এক জনসভায় জিয়াউর রহমানের জীবনীর উপর ভাষণ দিয়ে ব্যপক জনপ্রিয় হয়ে ওঠে , স্কুল জীবনেই তার মাঝে নেতৃত্ব ও সাংগঠনিক গুণাবলীর ব্যপক প্রকাশ ঘটতে দেখায় তৎকালীন সলংগা থানা ছাত্রদলের অন্যতম ছাত্রনেতা আজাদুর রহমান আজাদ বাদশা ফাহাদ আব্বাসী ও তার সহপাঠীদেরকে সুসংগঠিত করতে থাকে, আজাদুর রহমানের এই কাজে সার্বিক সহায়তা করে তারই সহযোদ্ধা মাহবুবুল আলম ওসমান, গোলাম সরোয়ার দুলাল , রন্জু আহমেদ, তারিফ মাহমুদ সহ আরো অনেকে । আজাদুর রহমানের ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় সেই সময় গঠিত হয় সলংগা হাইস্কুল শাখা ছাত্রদলের কমিটি, সকলের সমর্থনে যার সভাপতি হিসেবে নির্বাচিত হয় বাদশা ফাহাদ আব্বাসী । এর পরথেকেই মূলত তার রাজনৈতিক সোনালী জীবনের শুরু । বাদশা ফাহাদ আব্বাসী হাইস্কুল শাখা ছাত্রদলের সভাপতি নির্বাচিত হবার পর ছাত্রদলের কর্মী তৈরির মিশনে নামেন, সেই লক্ষ্যে সে তার পুরো টিম নিয়ে নিয়মিত ছুটতে থাকেন থানার প্রতিটি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে, এবং তার নেতৃত্বে তখন চড়বেরা মাধ্যমিক বিদ্যালয় ও নাইমুড়ী মাধ্যমিক বিদ্যালয় সহ বেশ কয়টি স্কুলে গঠিত হয় ছাত্রদলের কমিটি । হাইস্কুল শাখার সভাপতি হিসেবে তিনি সলংগা থানার ছয়টি ইউনিয়ন ও তার ওয়ার্ড গুলোর প্রতিটি মিটিংয়ে উপস্থিত থেকে নিয়মিত বক্তব্য প্রদান করতেন, তার জ্বালাময়ী বক্তব্যে কম্পিত হতো সভাস্থল। সততা, সুস্পষ্ট বক্তৃতা, এবং কর্মিবান্ধব রাজনৈতিক অগ্রগতির কারনে খুব দ্রুতই নবীন এই ছাত্রনেতা নজরে আসেন রায়গন্জ তাড়াশ সলংগার সাবেক সংসদ সদস্য আলহাজ্ব আব্দুল মান্নান তালুকদার ও উল্লাপাড়ার সাবেক সংসদ সদস্য এম আকবর আলীর মতো বর্ষীয়ান রাজনৈতিক নেতৃবন্দসহ জেলা নেতৃবৃন্দের। তিনি সাবেক এমপি আলহাজ্ব আব্দুল মান্নান তালুকদারের ব্যাপক আস্থা ও নৈকট্য লাভ করেন । উচ্চমাধ্যমিকে অধ্যায়ন কালে বাদশা ফাহাদ আব্বাসী সলংগা ডিগ্রী কলেজ শাখা ছাত্রদলের সভাপতি পদপার্থী হিসেবে সাংগঠনিক কার্যক্রম পরিচালনা করেন।

পরবর্তিতে তিনি ২০১৪ সালে জন্মস্থান চান্দাইকোনা ইউনিয়ন ছাত্রদলের সিনিয়র সহসভাপতির দায়িত্ব গ্রহন করে সামনের সারি থেকে নেতৃত্ব দিয়ে রায়গন্জ উপজেলা ছাত্রদলকে গতিশীল করতে ব্যপক অবদান রাখেন। বাদশা ফাহাদ আব্বাসী যখন দেশের স্বনামধন্য বেসরকারী  বিশ্ববিদ্যালয় ইষ্টার্ণ ইউনিভার্সিটিতে আইন বিষয়ে অধ্যায়ন করছিলেন তখনও তিনি ছাত্রদলের আদর্শ বুকে ধারন করে বেসরকারী বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রদলের নেতৃত্বে রাজধানীর বিভিন্ন কর্মসূচিতে অংশ গ্রহণ করেন ।

গত জাতীয় সংসদ নির্বাচনে তরুন এই ছাত্রনেতা বিএনপি পার্থীর পক্ষে ভার্চুয়াল জগতের পাশাপাশি সরাসরি মাঠে থেকে একজন সাহসী যোদ্ধার ন্যায় ভুমিকা পালন করেন।

২০১৪ সালের উপজেলা নির্বাচনে বিএনপি মনোনীত উপজেলা চেয়ারম্যান প্রার্থী জনাব ভিপি আয়নুল হকের পক্ষে ঘুড়কা ইউনিয়নে মাইলের পর মাইল পায়ে হেটে প্রচারনা কার্যক্রম ছাত্রনেতা বাদশা ফাহাদ আব্বাসীকে রায়গন্জে ব্যাপক গ্রহনযোগ্য করে তোলে ।সকল প্রকার সাংগঠনিক তৎপরতা সহ রাজপথের প্রতিটি আন্দোলন সংগ্রামে বাদশা ফাহাদ আব্বাসী ও তার সহযোগীদের সাহসী ভূমিকা আজ অবধিও সলংগাতে ব্যপক সমাদৃত । রায়গন্জ উপজেলা ছাত্রদলের সামনের সারি থেকে দীর্ঘদিন নেতৃত্বদানকারী এই ছাত্রনেতা বর্তমানে উপজেলা ছাত্রদলের সাধারন সম্পাদক পদপার্থী। এই বিষয়ে উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়ন ছাত্রদলের সম্ভাব্য নেতাদের সাথে যোগাযোগ করলে তারা জানান ঝিমিয়ে পরা উপজেলা ছাত্রদলকে সাংগঠনিক ভাবে সুসংগঠিত ও শক্তিশালী করতে চাইলে সাধারন সম্পাদক হিসেবে বাদশা ফাহাদ আব্বাসীর কোনো বিকল্প নেই । তাদের মতে উপজেলা ছাত্রদলের হারানো গৌরব ফিরিয়ে আনতে বাদশা ফাহাদ আব্বাসীর মতো একজন সাংগঠনিক দক্ষতাসম্পূর্ন নেতার প্রয়োজনীয়তা অত্যাবশ্যক।

প্রতিবেদক মুঠোফোনে তরুন এই ছাত্রনেতার সাথে যোগাযোগ করলে ধন্যবাদ জানিয়ে তিনি বলেন, আমি ছাত্রদলের পতাকাতলে এসে শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের ঐতিহাসিক ১৯ দফা বাস্তবায়নের শপথ নিয়েছে, সেই লক্ষ্যে কাজ করে যাচ্ছি। ছাত্রদল আমার প্রাণের সংগঠন, জীবনের শেষ সময় পর্যন্ত আমি ছাত্রদলের জন্য কাজ করে যাবো । রায়গন্জ উপজেলা ছাত্রদলকে দেশব্যাপি একটি মডেল হিসেবে তুলে ধরার প্রত্যয় নিয়ে আমি সাধারন সম্পাদক পদপার্থী হয়েছি এবং সেই লক্ষ্যে কাজ করে যাচ্ছি, বাকিটা সিনিয়র নেতাদের বিবেচ্য বিষয়। কাউন্সিলের মাধ্যমে নেতা নির্বাচিত হলে সাধারন সম্পাদক হিসেবে নিজের নির্বাচিত হওয়ার ব্যাপারে শতভাগ আশা প্রকাশ করে এই ছাত্রনেতা জানান দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া ও অবরুদ্ধ গনতন্ত্রের মুক্তি এবং তারেক রহমানের দেশে ফেরা সবই নির্ভর করছে গণবিপ্লবের উপর, আর গণবিপ্লবের জন্য প্রয়োজন তুমুল ছাত্র আন্দোলন, এক্ষেত্রে তৃনমূলের ভোটে ছাত্রনেতা নির্বাচনের কোনো বিকল্প নেই ।

নিউজটি শেয়ার করে সকলের মাঝে ছড়িয়ে দিন

এই ক্যাটাগরির আরো কিছু খবর