1. [email protected] : Abdur Razzak : Abdur Razzak
  2. [email protected] : admin :
  3. [email protected] : BDNewsFast :
  4. [email protected] : Abdul Jolil : Abdul Jolil
  5. [email protected] : Nazmus Sawdath : Nazmus Sawdath
  6. [email protected] : Tariqul Islam : Tariqul Islam
রবিবার, ১৩ জুন ২০২১, ০৩:০৬ পূর্বাহ্ন

শ্রমিকলীগ নেতা তুফানসহ ১০ আসামির বিরুদ্ধে চার্জ গঠন

  • আপডেট এর সময় : বৃহস্পতিবার, ৬ ফেব্রুয়ারী, ২০২০
  • ২৭৯ বার দেখা হয়েছে
Tufan Sarker (2L) a labour leader linked with the ruling Awami League party, along with three of his associates, is escorted by police following their arrest in Bogra on July 29, 2017. Bangladesh police have arrested four men over the rape of a teenager whose head was shaved as punishment by the accused's wife in a case that has shocked the conservative country, an official said July 30. / AFP PHOTO / STR

বগুড়া প্রতিনিধি :
বগুড়া শহরে তরুণীকে ধর্ষণ এবং ওই তরুনীসহ তার মাকে নির্যাতন করে মাথা ন্যাড়া করে দেয়ার অভিযোগে আলোচিত নারী ও শিশু নির্যাতনের মামলার আসামি শ্রমিকলীগ নেতা তুফান সরকারসহ ১০ আসামির বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগ (চার্জ) গঠন করা হয়েছে। একইসাথে তুফান সরকারের জামিনের আবেদন নামুঞ্জুর করা হয়েছে। মামলার অপর ৯ আসামি হলেন অভিযুক্ত তুফান সরকারের স্ত্রী তাছমিন রহমান ওরফে আশা, মেহেদী হাসান ওরফে রুপম, পৌর কাউন্সিলর (সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর) মহিলালীগ নেত্রী মার্জিয়া হাসান রুমকি, মোঃ সামিউল হক শিমুল, লাভলী রহমান ওরফে রুমি, মোঃ আতিকুর রহমান রওফে আতিক, মোঃ মুন্না, আলী আযম দিপু ও মোঃ এমারত আলম খান রওফে জিতু মিয়া। গত বুধবার বগুড়ার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইবুনাল নং-১ এর আদালতের বিচারক একেএম ফজলুল হক ওই আসামিদের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করেন এবং তুফান সরকারের জামিনের আবেদন নামঞ্জুর করেন। এ সময় আসামিরা নির্দোষ বলে দাবি করেন। বর্তমানে তুফান সরকার কারাগারে আটক রয়েছে এবং অন্যরা জামিনে রয়েছেন। এ ছাড়া মামলার চার্জশীটভুক্ত আসামী হওয়ায় পৌরসভার কাউন্সিলর মার্জিয়া হাসান রুমকিকে স্থানীয় সরকার বিভাগ সাময়িক বরখাস্ত করে। উল্লেখ্য, ২০১৭ সালের ১৭ জুলাই জাতীয় শ্রমিকলীগ বগুড়া শহর শাখার তৎকালীন সাধারন সম্পাদক তুফান সরকার ওই শহরের নামাজগড় এলাকার এক তরুণীকে ভালো কলেজে ভর্তির মিথ্যা প্রলোভন দিয়ে আসামি আতিক, মুন্না, দিপু, শিমুল, রূপন, জিতুদের যোগসাজসে বাসায় আনে। এরপর তুফান সরকার ওই তরুণীকে ধর্ষণ করে। গত ২৮ জুলাই আসামি আতিক, জিতু, দিপু, রুপম, শিমুল ও মুন্না আপোস মিমাংসার প্রলোভন দিয়ে ওই তরুণী ও তার মাকে কৌশলে অপহরণ করে পৌর কাউন্সিলর রুমকির বাড়িতে এনে নির্যাতন সহ ওই তরুণী ও তার মায়ের মাথা ন্যাড়া করে দেয়। এ ব্যাপারে ওই তরুণীর মা বগুড়া সদর থানায় মামলা দায়ের করলে পুলিশ তদন্ত শেষে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে এবং দন্ডবিধি আইনে পৃথক দুটি চার্জশীট দাখিল করেন। নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনের মামলায় বুধবার অভিযোগ (চার্জ) গঠন করা হয়।

নিউজটি শেয়ার করে সকলের মাঝে ছড়িয়ে দিন

এই ক্যাটাগরির আরো কিছু খবর